আজকে এই লেখাটি তাদের জন্য যারা অ্যালকোহল সেবনকে ফ্যাশন বা আনন্দ বা ব্যাক্তিত্ব, সামাজিক অবস্থান প্রকাশের পরিচায়ক হিসেবে বিবেচনা করেন। লেখাটি কাউকে ব্যাক্তিগত আক্রমণ বা আঘাত করার জন্যে নয় বরং অ্যালকোহলের ক্ষতিকর দিক সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য।

Alcohol addict are people who can’t stop drinking for long period, or who experiences withdrawal symptoms(Mood swing problem, sleep disturbances, mental & physical problems) if they do.

Chronic alcoholics are those who have reached a state of more or less irreversible brain or somatic changes caused by alcohol.

Features of Chronic alcoholism:

  1. Gastrointestinal tract: Liver damage, Jaundice, abnormal accumulation of fluid in the abdomen(ascitis), Gastrointestinal tract disturbance.
  2. Central nervous system: Insomnia(Lack of Sleep), Loss of memory, impaired judgement, dementia( impairment of memory, thinking, communication), Stroke, Brain injury etc.
  3. Eye: Loss of Vision, Red eyes.
  4. Various infections.

Causes of death in Chronic alcohol poisoning :

  • Atherosclerotic Heart disease
  • Pulmonary emphysema
  • Intermittent infections.

Hazards of alcoholism :

  • Vehicle accident
  • Fall from height
  • Drowning
  • Burning
  • Saturday night paralysis
  • Cooking gas poisoning
  • Death

যারা নিয়মিত অ্যালকোহল সেবন করে থাকেন তারা অনেকেই এই ধরনের কথা বলে থাকেন অ্যালকোহল ওষুধ হিসেবেও তো ব্যবহৃত হয়ে থাকে তাহলে এমনি খেলে সমস্যা কোথায়? সমস্যা হলো প্রতিষেধক হিসেবে ব্যবহৃত যখন হয় তখন সেটার মাত্রা, ধরণ বুঝেই সেটা ব্যবহার করা হয়। আর যখন একজন ডাক্তার এটির শত শত ক্ষতিকর দিক আপনার সামনে তুলে ধরার পরেও এটি গ্রহণ করে যাচ্ছেন আর স্বেচ্ছায় মারাত্মক কোন অসুখকে ডেকে আনছেন ও শেষে মৃত্যুকে নিশ্চিত করছেন এটি কোন বিবেগবান লোকের পরিচয় রাখেনা। নিশ্চই একটি কঠিন মৃত্যু ডেকে আনতে পারার মতোন দ্রব্যকে সমর্থন করার জন্য এই ধরনের কথাগুলো বলে বুদ্ধিহীনতার পরিচয় কেউ দিবেন না।

অ্যালকোহল কেউ চেষ্টা করলে ছাড়তে পারে তবে অনেকেই এটিও বলে থাকেন ঠিকমত ওষুধ সেবনের পরেও অ্যালকোহল ছাড়তে পারছেন না, বারবার একই ভুল করছেন। তাদের উদ্দেশ্যে বলবো, সবার আগে কোন কাজ করার জন্য, কোন নেশা ছাড়ার জন্য আপনাকে নিজে মনের ভেতর থেকে চাইতে হবে। তীব্র ইচ্ছা থাকতে হবে। কারণ আপনিই আপনার সর্বপ্রথম ও সবচেয়ে বড় সাহায্যকারী। তারপর আপনাকে একজন প্রফেশনালের সাহায্য নিতে হবে। একজন প্রফেশনাল কখনোই আপনাকে সাহায্য করতে পারবেনা, যতক্ষণ না আপনি আপনার সম্পূর্ণ ইচ্ছা আর দৃঢ় বিশ্বাস নিয়ে নিজেকে সাহায্য করবেন।

জীবন আপনার তাই সিদ্ধান্ত অবশ্যই আপনার। আপনার জীবনের সাথে শুধু আপনি একাই জড়িয়ে নেই, আছে আপনার কাছের মানুষও। তাই আপনার ভুলের মাসুল আপনার সাথে দিতে হয় আপনার পরিবার ও কাছের মানুষদেরও। তাই সময় থাকতেই সচেতন হোন। নিজেকে ও পরিবারের কাছের মানুষদের ভালোবেসে ভালো থাকুন। উদাসীনতা নয় সচেতনতা হোক ব্যাক্তিত্বের পরিচায়ক।

Afsana Mimi
3rd year, MBBS
Shaheed Suhrawardy Medical College