আমরা সবাই জানি প্রাণিজগতে যারা বাচ্চা প্রসব করে তারা সকলেই মায়ের দুধ খায়৷ মানুষ গরু, ছাগল এরা সবাই তাদের মায়ের দুধ খায়। প্রাণি জগতের শ্রেণিবিন্যাসের দিকে যদি তাকাই তাইলে দেখবো মায়ের দুধ পান করা না করা এমন জীব জগতকে দুই শ্রেণি ভাগ করা হয়েছে৷ যারা মায়ের দুধ পান করে তাদের একটা শ্রেণিতে ফেলা হয়েছে যার নাম হলো ম্যামাল বা স্তন্যপায়ী ৷ এখন ম্যামাল বা স্তন্যপায়ী শ্রেণি থাকার ফলে মানুষ কি তবে গরু, ছাগল বা বানর হয়ে গেল?

ঠিক তেমনি প্রাণিজগতে আমরা(মানুষ) হলাম প্রাইমেট বর্গের ; বানরও প্রাইমেট বর্গের৷ কিন্তু এর মানে এই না যে আমরা বানর।

বিবর্তনবাদ নিয়ে এত ভুংভাং কথাবার্তা প্রচলিত যে যারা এসব বলে তারা নিজেরাও জানেনা কি বলছে। ডারউইন তার “ডিসেন্ট অব ম্যান” বইয়ে বলেন যে, মানুষ, এপ সহ অন্যন্য প্রাইমেট প্রজাতির পূর্বপুরুষ হলো একজন৷ ওই পূর্বপুরুষের প্রজাতি থেকে হোমোনিড নামক একটা আলাদা প্রজাতি মানুষের পূর্বপুরুষ। কিন্তু এখন কই সে প্রজাতি? এটাই মিসিং লিংক নামে পরিচিত৷

১৮৮৯ সালে জাভা দ্বীপে আবিষ্কৃত হয় প্রথম হোমোনিড; জাভা মানব যাকে বিজ্ঞানের ভাষায় নাম দেয়া হয় হোমো ইরেকটাস৷ এরপর আরো হোমোনিড আবিষ্কৃত হয়েছে। মানুষ যে হোমো জেনাসের অন্তর্ভুক্ত তার আদি প্রজাতি হলো হোমো হেবিলিস৷ এরা প্রথম পাথুরে অস্ত্রশস্ত্র বানিয়েছিলো৷ হেবিলিস শব্দটা ল্যাটিন যার অর্থ হাতের কাজে দক্ষ৷ এদের উত্তরসূরী হলো ইরেকটাস।

এদিকে একদল অকর্মা মানুষ আর শিম্পাঞ্জির ডিএনএ নিয়ে কাজ শুরু করলো। তারা বললো যে মানুষ আর শিম্পাঞ্জির ডিএনএ নাকি ৯৯% মিল!

এরপর এখন প্রশ্ন হলো তাতে আমার কী? এতে কি প্রমাণিত হয় এরাই আমাদের ভাই ব্রাদার? এর উত্তর পেতে হলে পড়তে হবে “জীববিবর্তনের সাধারণ পাঠ” বইটি৷

বইটিতে আমজনতার ছয়টি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে জানো হয়েদছে। প্রশ্নগুলো হলো-

ক) আমরা কি বানর থেকে এসেছি?
খ) বিবর্তন শুধুই কি একটি তত্ত্ব?
গ) ডিএনএ কী?
ঘ) সকল বিজ্ঞানীর কাছে কি বিবর্তন তত্ত্ব গ্রহণযোগ্য?
ঙ) জীবনের সূত্রপাত হলো কীভাবে?
চ) জীববিবর্তন ও ঈশ্বর কেউ কি উভয়টিতে বিশ্বাস রাখতে পারে?

বিবর্তন তত্ত্ব আপনি স্বীকার না করতেই পারেন৷ সে অধিকার আপনার আছে৷ কিন্তু সত্য এটাই যে ক্রমাগত দ্রুত বিবর্তিত হওয়া ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া ও অন্যান্য ক্ষুদ্রজীব দ্বারা সৃষ্ট রোগব্যাধির বিরুদ্ধে শক্তিশালী প্রতিরোধ গড়ার জন্য এই তত্ত্বই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে৷ এছাড়া এই জ্ঞান কাজে লাগিয়েই কৃষি, ঔষধ ও জৈবপ্রযুক্তিতে আজকে বিজ্ঞান এই পর্যায়ে এসেছে৷

বই- জীববিবর্তনের সাধারণ পাঠ
লেখক- ফ্রান্সিসকো জে আয়ালা
অনুবাদ – অনন্ত বিজয় দাশ, সিদ্ধার্থ কর
প্রকাশনী- চৈতন্য
মুদ্রিত মূল্য – ২২০
এ্যানি সেন – লেখক